আমাদের জাতীয় কবি

Sample photo of Essay

উপহাপনা :. মানুষ বহুমুবী প্রতিভার অধিকারী প্রতিভাশালী মানুষ অন্যকে আকর্ষণ করে। ফলে.সে অন্যের নিকট প্রিয় হয়ে ওঠে। কাজী নজরুন ইসলাম আমাদের জাতীয় কবি। বাংলা সাহিত্যে ধূমকেতুর মতো ভার আবির্ভাব । অন্যায় ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে তিনি শুনিয়েছেন বিদ্রোহের সুর, অসাম্যের’ প্রতিবাদে গেয়েছেন সাম্যেরগানঃ সেই মহান কবি, বিদ্রোহী কবি, সাম্যের কবি,কাজী নজরুল ইসলাম আমাদের জাতীয়  কবি।

কাজী নজরুল ইসলামের সংক্ষিপ্ত জীবনী : কাজী নজরুল ইসলাম ১৩০৬ সালের ১১ই জ্যৈষ্ঠ পশ্চিমবঙ্গের আসানসোল মহকুমার চুরুলিয়া গ্রামে বিখ্যাত কাজী পরিবারে জন্রথরহণ  করেন। তীর পিতার নাম কাজী ফকির আহমদ ও মাতার নাম জাহেদা খাতুন। বাল্যকালেই তিনি পিতাকে হারিয়েছেন, পড়ালেখা শুরু করেন গীয়ের মক্তবে। তিনি বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন কাজ করেছেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে সৈনিক হিসেবে যোগদান করেন বাডালি পল্টনে। তীর প্রথম প্রকাশিত কবিতার নাম শুক্তি’। তিনি ‘বিদ্রোহী’ কবিতা লিখে “বিদ্রোহী কবি’ নামে খ্যাতিলাভ করেন ।  ইংরেজদের বিরুদ্ধে ‘বিদ্বোহী’ কবিতা লিখে তিনি কারাবরণ করেছেন। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭২ সালে বাংলাদেশ সরকার কবিকে ঢাকায় নিয়ে আসে এবং. তার, চিকিৎসার ব্যবস্থা করে। পরবর্তীতে তাকে জাতীয় কবির মর্যাদা দেওয়া হয়। ১৯৭৬ সালের ২৯শে আগস্ট ঢাকায় কৰি কাজী নজরুল ইসলাম মৃত্যুবরণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ প্রাণে তাকে রাষ্ট্র মর্যাদায় সমাহিত করা হয়। কাব্য প্রতিভা ; কাজী নজরুল ইসলামের ছিল বিরল কাব্য প্রতিভা। তার ‘বিদ্রোহী’ কবিতা তকে খ্যাতির শীর্ষে নিয়ে যায়। নজরুল ইসলামের উল্লেখযোগ্য কাব্যথন্থের মধ্যে রয়েছে ‘অ্নিবীণা’, ‘বিষের বাশি”, ‘জিঞ্জির, “ভাঙার গান, ‘দোলন-টাপা”, “ফণিমনসা’, ‘বিডেকুল”, ‘সর্বহারা” ইত্যাদি। তিনি ‘ধুমকেত’ নামে পত্রিকা প্রকাশ করেন ।

 বহুমুখী প্রতিভা : কাজী নজ্ররুল ইসলাম শুধু কৰিই ছিলেন না, তিনি একাধারে গীতিকার, সুরকার, নাট্যকার, সংগীত শিল্পী, প্রবন্ধকার এবং অনুবাদকও বটে। ইসলামি সাহিত্য, ইসলামি সংগীত, গজল, শ্যামা সংগীত ইত্যাদির ওপরও তীর পর্যাণ দখল ছিল।

নজরুল প্রিয় হওয়ার কারণ : কাজী নজরুল ইসলাম জমার প্রিয় কৰি হওয়ার সুনির্দিষ্ট কারণ রয়েছে। ভার লেখা কবিতা আমাকে অপার আনন্দ দেয়। তিনি ছিলেন নিপীড়িত মানুষের কৰি। অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে তার সাহসী প্রতিবাদ আমাকে ভীষণভাবে আলোড়িত করে। পরাধীনতা ও গোলামির বিরুদ্ধে ভীর কবিতাগুলো আমার শিশুমনকে বিশেষভাবে প্রভাবিত করেছে। তাছাড়া ভীর সামাজিক ও ধর্মীয় কুসংস্কার এবং মুসলিম জাগরণীমুলক কবিতা ও গানে আমি বিষুগ্ধ হই। এসব কারণেই তিনি আমার প্রিয় কবি।

উপসংহার : কৰি কাজী নজরুল ইসলাম তীর স্বল্প জীবনকালের মধ্যে আমাদের জন্য রেখে গেছেন গৌরবময় সাহিত্যভাপ্তার। আমরা ভাকে তক্তি ও মর্ধাদার সাথে স্মরণ করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *